Law to Justice Uncategorized অনলাইন প্রতারণা ও করণীয়

অনলাইন প্রতারণা ও করণীয়

“অনলাইন” কারো কাছে উপার্জনের সুগম পথ আবারো কারো কাছে মরণ ফাঁদ। 

বর্তমান সময়ে আমাদের প্রতিদিনের সকল কার্যক্রম ও সকল ধরনের বিজনেসই অনলাইন নির্ভর হয়ে যাচ্ছে। তাই আমরাও বিভিন্ন কাজের জন্যই অনলাইনে বিভিন্ন সেলার প্রতিষ্ঠানের সাথে যোগাযোগ ও লেনদেন করে থাকি আমাদের বিভিন্ন সেবা হাসিলের জন্য। 

অনেকসময় বুঝে উঠার আগেই একদল প্রতারক সেলাররা আমাদের প্রদানকৃত টাকা নেবার পর আমাদের সাথে যোগাযোগ বিচ্ছিন্ন করে দেয় অথবা তাঁদের প্লাটফর্ম থেকে আমাদেরকে ব্লক করে রাখে। ফলে আমরা অসাধু লোকদের জন্য অনলাইনে প্রতারিত হই এবং অনলাইন প্লাটফর্ম কে খারাপ ভাবতে শুরু করি। 

আমরা অসাধু সেলারদের থেকে প্রতারিত হবার পর থেকে অনলাইনের সকল সেলারদেরকেই প্রতারক ভাবতে থাকি। যার ফলে আমাদের জন্য বিশ্বস্ত সেবা পাওয়া টা খুবই দুষ্কর হয়ে পরে এবং বিশ্বস্ত সেলাররা আপনাদেরকে সার্ভিস দিতে গিয়ে তাঁদের মনোবল হারিয়ে ফেলে। 

তাই এইসব প্রতারনা থেকে বাচতে ও অনলাইনে বিশ্বস্ত লেনদেন করার জন্য আপনাদের সাথে আমাদের বাস্তব অভিজ্ঞতার আলোকে কিছু পয়েন্ট শেয়ার করছি। যেগুলোর প্রতি খেয়াল রাখলে অনলাইনে প্রতারিত হবার প্রবনতা ৯৯% কমে যাবে এবং বিশ্বস্ত সেলারদেরকে ভেরিফাইড করতে পারবেন। 

,

যেভাবে সেলার ভেরিফাই করতে পারেনঃ

১) প্রতিষ্ঠানের প্রফেশনাল ওয়েবসাইট আছে কিনা দেখুন। 

২) তাঁদের দেওয়া ঠিকানা গুগোল ম্যাপে সার্চ করে দেখুন। সেই এলাকায় তাঁদের নামে কোন প্রতিষ্ঠান ম্যাপে শো করছে কিনা, অনেকসময় নাও করতে পারে। 

৩) তাঁদের বাংলাদেশী মোবাইল নাম্বার আছে কিনা কনফার্ম করুন। অবশ্যই এক্টিভ নাম্বার থাকতে হবে। 

৪) পেইজ অথবা ওয়েবসাইটে পজিটিভ রিভিউ আছে কিনা দেখুন। 

৫) তাঁদের সেবা সম্পর্কে আপনাকে ধারনা দেবার আগেই টাকা চাচ্ছে কিনা খেয়াল করুন। 

৬) পোস্টের প্রতিটা কমেন্টের রিপ্লাই সাবলীলভাবে করছে কিনা দেখুন।

৭) ইনবক্সে আপনাকে পর্যাপ্ত সময় দিচ্ছে কিনা সেদিক খেয়াল করুন। 

৮) আপনার চাহিদাকে সর্বোচ্চ গুরুত্ব দিচ্ছে কিনা খেয়াল করুন । 

১০) পেমেন্ট করার জন্য কোন ব্যাংক একাউন্ট আছে কিনা নিশ্চিত হোন। 

১১) অন্যান্য কোন কোন প্রতিষ্ঠানকে তাঁদের সেবা দিচ্ছে সেটা জানুন।

১২) তাঁদের প্লাটফর্মের মান যথেষ্ট প্রফেশনাল ও পুরনো কিনা দেখুন। 

.

.

.

প্রতারক যেভাবে সনাক্ত করতে পারেনঃ 

১) তাঁদের নির্দিষ্ট কোন মোবাইল নাম্বার থাকবে না।

২) মোবাইলে সরাসরি কথা বলবে না ।

৩) নির্দিষ্ট কোন পেমেন্ট মেথড থাকবে না।

৪) হুট করেই আগে টাকা চেয়ে বসবে।

৫) নিজে থেকেই নিজেদেরকে বিশ্বস্ত বলে প্রমান করার চেষ্টা করবে।

৬) কমেন্ট করলে কোন রিপ্লাই করবে না।

৭) আপনি কিছু জানতে চাইলে সেটার সঠিক সমাধান দিতে পারবে না।

৮) পেমেন্ট এর জন্য কখনোই ব্যাংক এড্রেস দিবে না। 

৯) ভিডিও কলে কথা বলতে চাইবে না।

১০) নিজেদের কোন ডকুমেন্টস দেখাতে চাইবে না।

১১) নিজেদের নাম অথবা ঠিকানা গোপন করবে। 

১২) বিকাশ, রকেট, নগদ নাম্বারে কল দিলে কল যাবে না।

১৩) পেইজে তথ্যমূলক কোন পোস্ট থাকবে না।

১৪) অন্যান্যদের চাইতে কম দামে আপনাকে পন্য অফার করবে।

১৫) সরাসরি দেখা করতে মোটেও রাজি হবে না। 

১৬) পেইজ বা ওয়েবসাইটের কোয়ালিটি বাজে হবে।

১৭) ভালো কোন কন্টেন্ট থাকবে না।

১৮) অর্গানিক কোন রিভিউ থাকবে না। 

১৯) তাঁদের পুরনো কোন গ্রাহক দেখাতে পারবে না। 

২০) কোন প্রকার রিয়েল ডোকুমেন্ট ও প্রুফ থাকবে না। 

এমনি কিছু প্রক্রিয়ার মাধ্যমে আপনি সেলার ভেরিফাই ও প্রতারকদের সনাক্ত করতে পারবেন। অনলাইনে সবাইকে প্রতারক না ভেবে আগে প্রতারকদের শনাক্ত করুন। কারো সম্পর্কে ভালভাবে না জেনেই হুট করে কটু কমেন্ট করা থেকে বিরত থাকুন। 

আমাদের সকলের অনলাইনে পথচলা আরো নিরাপদ ও বিশ্বস্ত হোক সেটাই কাম্য।

আমার এই লেখাটুকু উপকারে আসলে বন্ধুদের সাথে শেয়ার করুন।

www.lawtojustice.com

Writer | Nayem H Ovi

Facebook | LinkedIn

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Related Post